রাজনৈতিক মতলববাজরা মাদক অভিযানের বিরোধীতা করছে

রাজনীতি
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

রাজনৈতিক মতলববাজরা মাদক অভিযানের বিরোধীতা করছে


আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের একরাম হত্যা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, এখানে অভ্যন্তরীণ কোন্দলের আলামত আমরা পাইনি। প্রকৃত ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এখানে কি সে ভিকটিম হয়ে গেল- তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি কোনো নিরীহ ব্যক্তি হামলার শিকার হলে সরকার কোনো ছাড় দেবে না।
শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তজার্তিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগরীতে মহিলাদের জন্য বাস সার্ভিস ‘দোলন চাপা’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন র‌্যাংগস গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ চৌধুরী।

বাংলাদেশে এই প্রথম বেসরকারি উদ্যোগে নারীদের জন্য এ ধরনের সার্ভিসের ব্যবস্থা করেছে র‌্যাংগস গ্রুপ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পাবলিক বাসে চলাচল করতে গেলে নারীদের যে বিড়ম্বনার শিকার হতে হয় তার ওপর একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন মিরপুর ১২ থেকে মতিঝিল রুটে এ বাস চলাচল করবে। এই সার্ভিসে আপাতত ১০টি বাস রয়েছে। ভবিষ্যতে ৬০টি বাস নামানোর পরিকল্পনা আছে। এসব বাসে বিআরটিএ নির্ধারিত ভাড়া নেয়া হবে। ড্রাইভার এবং হেলপারও থাকবেন নারীরা।

এই বাসে প্রাথমিক চিকিৎসা, সিসিটিভিসহ নিরাপদ ও আরামদায়ক ব্যবস্থা আছে। বাসগুলো মিরপুর সার্কেল থেকে আজিমপুর, মিরপুর ১২ থেকে মতিঝিল রুটে চলাচল করবে। ভারতীয় ভলভো আইশার ভেহিকল লিমিটেডের বাসটিতে মিরপুর ১২ থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ৩০ টাকা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে।
অনুষ্ঠানে র‌্যাগস গ্রুপের চেয়ারম্যান রব চৌধুরী, ম্যানেজিং ডিরেক্টর সোহানা রব চৌধুরী, এস এস গ্রিল, ঢাকা পরিবহন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এনায়েত উল্লাহ খান বক্তব্য রাখেন।

গত ২৬ মে কক্সবাবারের মেরিনড্রাইভ সড়কে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাইন্সিলর একরামের মৃত্যুর পর শুরু হয়েছে বিতর্ক। ২০০৪ সাল থেকে চলা ‘ক্রসফায়ার’ আর ‘বন্দুকযুদ্ধের’ বর্ণনা কখনও বিশ্বাসযোগ্য ছিল না। কিন্তু কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধের’ আগে একরামুলের মোবাইল ফোনে স্ত্রী আয়েশা আক্তারের কল করা এবং গোটা ঘটনাটির অডিও রেকর্ড প্রকাশ হওয়ার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যে কথা এতদিন বলে আসছে, তার সত্যতা নিয়ে আবারও প্রশ্ন উঠেছে।

এই অডিও রেকর্ড প্রকাশ করে নিহতের স্ত্রী বলেছেন, ‘একরাম কোনো ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা যায়নি, তাকে একতরফা গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।’

শনিবার (১ জুলাই) অডিও রেকর্ডটি ভাইরাল হওয়ার পর তুমুল সমালোচনা চলছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘এ বিষয়ে তদন্ত হবে’। অপরদিকে ‘বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে’ বলেছে র‌্যাব।

একরামুলের মৃত্যু চলমান মাদকবিরোধী অভিযানকে প্রশ্নের মুখোমুখি করেছে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মোটেও না। এ ধরণের অভিযানে দুই একটা ভুল হতেই পারে। প্রকৃত ঘটনা আমি জানি না। এটা কোনো নিরীহকে শিকার করা হলো কি না- বিষয়টা তদন্তে জানা যাবে। তদন্তের আগে কিছুই বলা যাচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘একরামুল আমাদের পার্টির একজন কর্মী, এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একটা বক্তব্য দিয়েছেন। এরপর আমার মনে হয় কিছু বলা উচিত নয়। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছেন এ অভিযানে যদি কোনো নিরীহ মানুষ হয়রানির শিকার হয়, তাহলে অবশ্যই তদন্ত করে যারা এ অভিযানের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে রেহাই দেয়া হবে, তা মনে করার কোনো কারণ নেই।

এই ঘটনাটি সাধারণের মধ্যে কোনো আতঙ্ক ছড়াচ্ছে কি না-এমন প্রশ্নে কাদের বলেন, এখানে আতঙ্ক হবে কেন? আমরা সত্যের পথে আছি। অন্যায় হলে তার বিচার হবে। এ ধরনের একটা বড় কাজ যা দেশের সর্বস্তরে প্রশংসা কুড়িয়েছে এখন একটি মতলবি মহল রাজনৈতিক কারণে এর বিরোধিতা করছে। যাতে এটা সফল না হয়। এ বিষয়ে সাধারণ মানুষের কাছে তারা ভুল তথ্যও তুলে ধরছে। ‘

তিনি বলেন, সুনামির মত মাদক দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। সেই অবস্থায় শুধুমাত্র মৌখিক প্রচারণায় মাদকের স্রোত থামানো যাচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, আজ যারা সমালোচনা করে এ অভিযানকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চান, তারা কিন্তু মাদক নিয়ে একটা কথাও উচ্চারণ করেন নাই। রাজনীতি ছাড়া এ দেশে আমাদের আর কিছু বলার নাই? তরুণ সমাজ মাদকের জন্য ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে, বাতাস দুষিত হচ্ছে তা নিয়ে আমরা কি কিছুই বলবো না? এ বিষয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার কথা বলা হয়েছিল। এ অভিযানে দেশবাসী খুশি, শুধু মতলববাজরা খুশি না। ‘

ঢাকা মহানগরীতে পুরাতন, লক্কর ঝক্কর মার্কা গাড়ীর কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আমরা অনেক উচ্চতায় পৌঁছে গেছি। আমাদের উচ্চতার সঙ্গে এমন গরীব, পুরাতন, নস্ট গাড়ি মানায় না। এতো করে বলার পরও মালিকরা নস্ট, পুরাতন গাড়ি তুলছেন না। বিদেশিরা ঢাকায় এসে এসব গাড়ি দেখে কী বলে? তাদের কাছে আমরা লজ্জা পাই। আমি আবার তার মন্ত্রী। আমারতো খারাপ লাগারই কথা।’

মন্ত্রী বলেন, ‘পুরাতন, নষ্ট এ গাড়ী গুলো ডাম্পিং করতে চাই কিন্তু পারি না। কয়টা ডাম্পিং করবো?’ পরিবহন মালিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনার ঢাকায় নতুন নতুন গাড়ি নামানোর উদ্যোগ নিন।