বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে দেশ আরও গরিব হতো: বাণিজ্যমন্ত্রী

আওয়ামীলীগ
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে দেশ আরও গরিব হতো: বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদের করা ‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ আরও সাত-আট বছর আগে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হতো’ মন্তব্যের সমালোচনা করে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশকে অধিকতর দরিদ্র দেশে নামিয়ে আনতো।

শনিবার (২৪ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (বাংলাদেশ জাসদ) আয়োজিত অগ্নিঝরা মার্চ ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন ।

তোফায়েল আহমদে বলেন, ‘দুই-দুই বার ক্ষমতায় থেকে তারা বাংলাদেশের জন্য কোন উন্নয়নমূলক কাজটি করেছে? তারা পদ্মা ব্রিজ, মেট্রোরেল,কর্ণফুলী টানেল, উন্নতমানের ফ্লাইওভারসহ কোনও কাজেই তো অগ্রগতি দেখাতে পারেনি, বাস্তবায়ন তো দূরের কথা। ২০০১ সালে আমরা ক্ষমতা হস্তান্তর করার সময় বিদেশে রপ্তানি রেখে গিয়েছিলাম ৬ দশমিক ৭ মিলিয়ন ডলার। পাঁচ বছরে তারা মাত্র তিন মিলিয়ন বাড়িয়ে ১০ মিলিয়নে এনেছিল। এরপর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ১৪ মিলিয়ন ডলারে। সেই রপ্তানির সূচক ১৪ থেকে এখন তা দাঁড়িয়েছে ৩৫ মিলিয়ন ডলারে। সারাদেশে ৯০ শতাংশ মানুষের ঘরে এখন বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে। ২০১৮ সালের শেষে শত ভাগ মানুষ বিদ্যুতের সুবিধা পাবে। আমরা ক্ষমতা হস্তান্তরের সময় চার হাজার ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দিয়ে গিয়েছিলাম। তারা ক্ষমতায় এসে সেটাকে তিন হাজার মেগাওয়াটে নামিয়ে এনেছিল।’

সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আমরাই জয়ী হবো দাবি করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজ যখন আমরা জাতিসংঘের স্বীকৃতি পেয়ে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হলাম, যে মুহূর্তে আমরা আমাদের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন পূরণের পর বিজয় উৎসব করছি, সেই মুহূর্তেই তারা এ ষড়যন্ত্রমূলক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এ ষড়যন্ত্র বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই শুরু হয়েছে। আজও চলমান রয়েছে। ২০১৮ সাল নির্বাচনের বছর। ষড়যন্ত্র হতে পারে। সেই ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করে আমরা আবারো প্রমাণ করবো,আমরা বীরের জাতি।’

জাসদের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য মোহাম্মদ খালেক, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক, জাতীয় যাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী,অধ্যাপক নুরুল ইসলাম,ডা. মোস্তাক হোসেনসহ অন্যান্যরা।