বাজারে দেশি লিচু, দাম চড়া

অর্থনীতি
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

বাজারে দেশি লিচু, দাম চড়া


মধুমাস আসতে এখনও পাঁচদিন বাকি। এরই মধ্যে রাজশাহীর বাজারে উঠতে শুরু করেছে ‘অতিথি’ ফল খ্যাত লিচু। বাজারে কেবল দেশীয় জাতের লিচু পাওয়া যাচ্ছে। চড়া দামের এ লিচু ক্রেতারা কিনছেন দেখেশুনে। ফলে রাজশাহীতে লিচুর বিকিকিনি এখনও জমে ওঠেনি।
নগরীর সাহেববাজারে লিচুর পসরা সাজিয়ে বসেছেন সবুজ আলী ও মিলন হোসেন। মৌসুমী এ দুই ফল ব্যবসায়ী নগরীর দরগাপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তারা জানিয়েছেন, এখন বাজারে এসেছে গুটি লিচু। নগরীর আশেপাশের বাগানগুলো থেকে লিচু এনে বিক্রি করছেন তারা। প্রতি একশ লিচু বিক্রি হচ্ছে আড়াইশ থেকে সাড়ে চারশ টাকায়। দাম চড়া এটি মানছেন তারা।
নগরীর তালাইমারী শহীদ মিনার এলাকার বাসিন্দা এনামুল হক লিচু ব্যবসায় যুক্ত এক যুগ। তিনি বলেন, ক্রেতারা বেশ আগ্রহ নিয়েই লিচু দেখছেন। কিন্তু দাম শোনার পর বেশিরভাগ ক্রেতাই পিছুটান দিচ্ছেন।
তবে দামে অসন্তোষ থাকলেও লিচু কিনতে কার্পণ্য করছেন না নগরবাসী। নগরীর সাহেববাজারে লিচু কিনছিলেন জেলার চারঘাটের নন্দনগাছি গ্রামের আকলিমা বেগম। তিনি জানান, নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় মেয়ের বাড়ি বেড়াতে যাচ্ছেন তিনি। যাবার পথে নাতি-নাতনিদের জন্য লিচু নিয়ে যাচ্ছেন। দাম কম হলে স্বস্তি পেতেন ক্রেতারা।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্র সূত্র জানায়, রাজশাহী অঞ্চলে মূলত উন্নতমানের জাত হিসেবে পরিচিত মাদ্রাজি, বোম্বাই, কাদমি, মোজাফ্ফরপুরী, বেদানা, কালীবাড়ি, মঙ্গলবাড়ি, চায়না-৩, বারি-১, বারি-২ ও বারি-৩ জাতের লিচু উৎপাদিত হয়। এসব লিচুর মোট উৎপাদনও বেশি, আবার আকারেও বড়। রঙেও আকর্ষণীয়।
রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আলীম উদ্দিন বলেন, এখন বাজারে এসেছে দেশি জাতের লিচু। চলতি মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে আগাম জাতের রাবি-১ লিচু বাজারে আসতে শুরু করবে। এরপর আসবে বারি-২ ও বারি-৩। বারি জাতের লিচু এক থেকে দেড় সপ্তাহের মধ্যে পেকে যায়। এসব জাতের লিচু জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত থাকবে।

তিনি আরও জানান, এরই মাঝে আসবে বোম্বাই, চাইনা-৩, কাদমি, মোজাফ্ফরপুরী, বেদানা, কালীবাড়ি, মঙ্গলবাড়িসহ অন্য জাতের লিচু। সব মিলিয়ে এসব লিচু বাজারে থাকবে আগামী জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। তবে খরা তীব্র হলে তাড়াতাড়িও পেকে যেতে পারে লিচু।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক দেব দুলাল ঢালি জানান, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এ অঞ্চলে বাণিজ্যিক লিচু বাগান গড়ে উঠেছে। লিচু চাষ করে অনেকেই স্বাবলম্বী হয়েছেন। ফলে দিন দিন সম্প্রসারিত হচ্ছে বাণিজ্যিক লিচু চাষ।

রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি দফতর জানিয়েছে, ২০১৬-২০১৭ মৌসুমে রাজশাহী কৃষি অঞ্চলে এক হাজার ৯৯৯ হেক্টর লিচু বাগান রয়েছে। এ থেকে লিচু উৎপাদন হয়েছে ১০ হাজার ৪৩৩ টন। চলতি মৌসুমে এটিই এ অঞ্চলের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা।