১শ’ বলের ক্রিকেটে মাতবে বিশ্ব!

খেলা
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

১শ’ বলের ক্রিকেটে মাতবে বিশ্ব!


একটা সময় অনির্দিষ্ট সময়ের জন্যই খেলা হতো ক্রিকেট। পরবর্তী সময়ে পাঁচ দিনের টেস্ট ও একদিনের ক্রিকেটের আবির্ভাব ঘটে। তারপর এর উত্তেজনা বাড়িয়ে দিতে আসে টি-টোয়েন্টি ফরমেট। এ ছাড়া টি-টেন ও সিক্স এ সাইডের মতো পিকনিক ধারার ক্রিকেটেরও রয়েছে জনপ্রিয়তা।
ক্রিকেটে একটা সময় ওভারপ্রতি বল হতো আটটি করে। সেই সময় অতীত হয়েছে বহু আগে। প্রতি ওভারে ছয় বল করেই এখন হিসেব হয় ভদ্রলোকের খেলায়। তবে বিবর্তনের স্রোতে এসেছে নতুন ফরম্যাট। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ফরম্যাট পরিবর্তন হবে, নতুন কিছু আসবে, সেটাই স্বাভাবিক।
তবে যদি বলা হয়, এক ইনিংসে মাঠে গড়াবে মোট ১০০টি বল। আর শেষ ওভার হবে ১০ বলে? অবাক হবেন নিশ্চয়ই! অবিশ্বাস্যও ঠেকতে পারে! তবে সেই অবিশ্বাস্য বিষয়টিকেই এবার বাস্তব রূপ দিতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। তবে, বিষয়টি গোপন রাখতে চাইলেও তা ফাঁস করে দিয়েছে ইংলিশ গণমাধ্যমগুলো।
সম্প্রতি বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী ক্রিকেট বোর্ড ইসিবি জানিয়েছে, আগামী বিশ্বকাপের পরের বছরই ১০০ বলের ইনিংসের নতুন ফরম্যাটের এক টুর্নামেন্টের প্রচলন ঘটাবে তারা, যে ম্যাচের প্রতি ইনিংসে প্রথম ১৫ ওভার হবে স্বাভাবিক নিয়মেই, অর্থাৎ প্রত্যেক ওভারে ৬ বল করে। তবে ১৫ ওভার তথা ৯০ বল সম্পন্ন হওয়ার পর শেষ ১০ বল হবে একটি ওভারে। অর্থাৎ, ১০ বলে এক ওভার!

২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্ট মাঠে থাকবে পাঁচ সপ্তাহব্যাপী। সাউদাম্পটন, নটিংহ্যাম, বার্মিংহাম, লন্ডন, ম্যানচেস্টার, কার্ডিফ ও লিডস সহ মোট আটটি ভেন্যুতে আয়োজিত হবে এই বিচিত্র ক্রিকেট আসর। তবে এই ক্রিকেট তারা কাউন্টির অন্যান্য ফরম্যাটের পাশাপাশি চালাবে। কাউন্টিতে বর্তমানে চারদিনের, ৫০ ওভারের ও ২০ ওভারের ক্রিকেট প্রচলিত আছে।

টুর্নামেন্টের ব্যাপারে ইতোমধ্যে এমসিসি ও ইংল্যান্ডের ফার্স্ট ক্লাস কাউন্টি দলগুলোকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে ইসিবির পক্ষ থেকে, এমনটাই জানিয়েছেন ইসিবির প্রধান নির্বাহী টম হ্যারিসন। টুর্নামেন্ট প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, এই নতুন পরিকল্পনাটি তরুণদের ক্রিকেটের ব্যাপারে আরও উৎসাহিত করবে। ক্রিকেট আরও বেশি জনপ্রিয় হবে। তবে এই আসর পরিচালনা করাটা বেশ চ্যালেঞ্জিং। এটি মাঠে গড়াতে যা যা করা লাগে আমরা করবো। ক্রিকেট খেলাটাই আসলে নতুনত্বে ভরা। ভবিষ্যতে ক্রিকেটকে আমাদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে। লাল এবং সাদা বলের ক্রিকেটে ১৮টি কাউন্টি দল আছে। এই ধরণের ক্রিকেটে সেই দলগুলোও সমর্থন পাবে, সেই সাথে লাভের অংশও।

তবে ইসিবির সিসিও সঞ্জয় প্যাটেল এটিকে নতুন প্রজন্মের প্রতিযোগিতা বলে আখ্যায়িত করেছেন। পুরুষদের পাশাপাশি এই ১০০ বলের নতুন ফরম্যাটে নারীদের লিগও চালু হবে। আর তাতে ব্রডকাস্টার প্রতিষ্ঠান সহ ক্রিকেটাররাও নাকি বেশ আগ্রহী।

এদিকে নতুন ফরম্যাটকে দর্শকরা কিভাবে নেবেন তা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর একটি জরিপে বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৩৮মিনিট পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে মোট ১৪০৬টি ভোটের ৪০ শতাংশ পড়েছে, 'এটা অপ্রয়োজনীয়, কারণ টি-টুয়েন্টি যথেষ্ট বিনোদন দেয়' এই শ্রেণিতে। আর ৩০ শতাংশ ভোট পড়েছে 'এটা সম্পূর্ণ পাগলাটে বুদ্ধি' শ্রেণিতে।

২০০৩ সালে ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের উদ্ভাবন করে। এবার তারা আরো একটি নতুন ফরম্যাট আনতে যাচ্ছে। যেখানে টি-টোয়েন্টির চেয়ে ২০টি করে মোট ৪০টি কম বলা করা হবে। ২০২০ সালে ইংল্যান্ড ১০০ বলের ক্রিকেট চালু করলে সেটা হবে বড় কোনো ক্রিকেট খেলুড়ে দেশের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেট।
অবশ্য গেল বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে টি-১০ ক্রিকেট। হংকংয়ে হয় ৫ ওভারের ক্রিকেট।
১৯৭৯-৮০ সাল থেকে ৬ বলের ওভারের ক্রিকেট চলে আসছে। তার আগে কখনো ৪ বল, কখনো ৫ বল, কখনো ৬ বল, আবার কখনো ৮ বলে ওভারের ক্রিকেটও হয়েছে।