টেস্টে মাশরাফি কী হিসেবে খেলবেন, প্রশ্ন বিসিবি প্রধানের

ক্রিকেট
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

টেস্টে মাশরাফি কী হিসেবে খেলবেন, প্রশ্ন বিসিবি প্রধানের

আবার শোনা যাচ্ছে মাশরাফি বিন মুর্তজার টেস্টে ফেরার গুঞ্জন। বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) শেষ রাউন্ডে মাঠে নামায় সেই সম্ভাবনার পালে হাওয়া লেগেছে জোরেশোরে। বারবার ছুরি-কাঁচির নিচে যাওয়া বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক ক্রিকেটের লম্বা ফরম্যাটে খেলার মতো ফিট?

অনেকের মতো বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের মনেও উঁকি দিচ্ছে এই প্রশ্ন। তবে তার অন্য একটি প্রশ্ন পরিস্থিতি ঘুরিয়ে দিচ্ছে অন্য দিকে। সত্যিই টেস্টে ফিরলে মাশরাফি নিশ্চয়ই বোলার হিসেবে খেলবেন। এ নিয়ে কারও মনে প্রশ্নের উদয় হওয়ার কথা নয়। অথচ বোর্ড সভাপতির মনে ‘অদ্ভূত’ এই প্রশ্নই উঁকি দিয়েছে, ‘মাশরাফি টেস্টে ফিরলে বোলার নাকি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলবে?’

আপাতত জাতীয় দলের খেলা নেই। শুধু ওয়ানডে খেলেন বলে নিদাহাস ট্রফিতেও যাওয়া হয়নি মাশরাফির। আশায় ছিলেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামতে পারবেন, তবে ভারতের মাটিতে হতে যাওয়া এই সিরিজটিও বিসিবি চাইছে ২০ ওভারের ফরম্যাটে। সব মিলিয়ে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ থেকে অনেকটা সময় মাঠের বাইরে কাটাতে হবে মাশরাফিকে।

এই ‘গ্যাপ’ পূরণেই সম্ভবত নেমে পড়েছিলেন বিসিএলের ম্যাচে। যেখানে টেস্টে ফেরার আগ্রহের কথাও শুনিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।
শুক্রবার বঙ্গবন্ধু ভলিবলের ফাইনালে উপস্থিত হওয়া নাজমুলের সামনে এসে পড়েছিল মাশরাফির টেস্টে ফেরা নিয়ে প্রশ্ন। বিসিবি প্রধান প্রশ্নটা হয়তো শুরুতে এড়িয়ে যেতে চাইলেন এই বলে, ‘আমি জানি না, ও টেস্টে ফিট কিনা।’ কিন্তু যখন মাশরাফির বিসিএলে মাঠে নামার কথা মনে করিয়ে দেওয়া হলো তাকে, তখন উল্টো তিনিই প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন, ‘কোথায়, কোন দেশে টেস্ট খেলবে সে? দেশের বাইরে?

তাহলে কিন্তু প্রতিদিন ওকে অন্তত ২০ থেকে ২৫ ওভার বোলিং করতে হবে। ও বলছে (টেস্ট খেলতে) পারবে? তাহলে তো আমাদের কিছু বলার নেই।’ সিদ্ধান্তের ভার তাই ফিজিওর ‘সবুজ সংকেত’ ও মাশরাফির ‘সামর্থ্যর ওপর’ ছেড়ে দিলেন বিসিবি সভাপতি।

এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল, তবে এরপর নাজমুলের মনে উদয় হলো ‘অদ্ভূত’ এক প্রশ্ন, ‘সে (মাশরাফি) কী হিসেবে আসতে চায়, ব্যাটসম্যান না বোলার? সেটা বড় প্রশ্ন।’ পেসার মাশরাফি যে বোলার হিসেবেই খেলবেন, সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না নিশ্চয়ই!
মাশরাফির প্রয়োজনীয়তা আছে ক্রিকেটের সব ফরম্যাটেই।

নাজমুলও সেটা বোঝেন খুব ভালো করে, ‘আমি মনে করি সে ফিট থাকলে যে কোনও সংস্করণে খেলা উচিত। তার মতো খেলোয়াড় পাওয়া কঠিন।’ তাই তার চাওয়া, ‘মাশরাফি যদি ওয়ানডে খেলতে পারে, তাহলে টি-টোয়েন্টিও খেলা উচিত। ১০ ওভার যদি করতে পারে, ৪ ওভারও তার করা উচিত।’

প্রস্তাবও দিয়েছিলেন ২০ ওভারের ক্রিকেটে ফেরার জন্য। কিন্তু অবসর ভেঙে ফিরতে রাজি হননি মাশরাফি। তাই বিসিবি সভাপতি ধরেই নিয়েছেন,‘তাকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল (টি-টোয়েন্টিতে ফেরার)। তখন সে আগ্রহ দেখায়নি। আমরা তাই ধরে নিচ্ছি তার আগ্রহ নেই।’

কোচ নিয়োগ নিয়েও কথা বলেছেন নাজমুল। আগের মতো এবারও ‘অগ্রগতির’ খবর দিয়েছেন তিনি, ‘কোচের ব্যাপারে অবশ্যই অগ্রগতি হয়েছে। চুক্তি সই করে হাতে না আসা পর্যন্ত আমরা কিছু বলতে পারছি না। আশা করি হয়ে যাবে। ওটা হাতে পেলেই হয়ে যাবে।’ তাহলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে কোর্টনি ওয়ালশের কাঁধেই থাকছে প্রধান কোচের দায়িত্ব? বিসিবি প্রধান সেটা অবশ্য নিশ্চিত করতে পারেননি, ‘ওটা আমরা পরে ঠিক করব। কে প্রধান কোচ হবে, আমরা বোর্ড মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত নেব।