এবার মোবাইল ফোনেই জানা যাবে ভূমিকম্পের পূর্বাভাস!

তথ্যপ্রযুক্তি
Typography
  • Smaller Small Medium Big Bigger
  • Default Helvetica Segoe Georgia Times

এবার মোবাইল ফোনেই জানা যাবে ভূমিকম্পের পূর্বাভাস!

ভূমিকম্প সবার কাছে ভয়ানক বিপর্যয়কর প্রাকৃতিক দুর্যোগ হিসেবেই পরিচিত, যার কোনো পূর্বাভাস পাওয়া যায় না। আর এ কারণেই ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনার সুযোগও কম থাকে। কিন্তু এবার হয়তো অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের মতো ভূমিকম্পেরও পূর্বাভাস পাওয়া যাবে এবং তা আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমেই।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলসে ঘটে যাওয়া এক ভয়ানক ভূমিকম্পের পূর্বাভাস কিছু মানুষ তাদের মোবাইলের মাধ্যমে জানতে পারেন।

৫ এপ্রিল, ২০১৮ তারিখে ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলসে একটি ভূমিকম্প আঘাত হানে। দেশটির ভূতত্ত্ব বিভাগের জরিপ অনুযায়ী ঠিক ১২টা ২৯ মিনিটে ভূমিকম্পটি ৩৮ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে অনুভূত হয় এবং এর তীব্রতা ছিল ৫.৩ মাত্রার।

লস এঞ্জেলসের অনেক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী তাদের হ্যান্ডসেটে ‘বেটা কুয়েক’ নামের একটি অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করে রেখেছিলেন। ওই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ভূমিকম্প সংঘটিতও হওয়ার ৩০ সেকেন্ড পূর্বেই একটি সতর্কতামূলক পূর্বাভাস পেয়ে যান।

অ্যালিসা ওয়াকার নামে একজন টুইট করেন, ‘এটা আমার জীবনে প্রথম ভূমিকম্প, যার পূর্বাভাস আমি আমার মোবাইলের মাধ্যমে পেয়ে গেছি।’

একটি ব্লগের সম্পাদক দাবি করেন, ‘আমি ৩৪ সেকেন্ড আগেই একটি সতর্কবার্তা পেয়েছি, যা সঠিক সিদ্ধান্ত এবং আশ্রয় খোঁজার জন্য যথেষ্ট সময়।’

অ্যাপ্লিকেশনটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জানা যায়, স্মার্টফোনে থাকা কিছু সেন্সরের মাধ্যমে অ্যাপ্লিকেশনটি কাজ করে। ভূমিকম্প শুরু হওয়ার প্রথম দিকেই যে সূক্ষ্ম কম্পন হয়, তা ফোনের সেন্সরে ধরা পড়ে এবং অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে সতর্কবার্তা আকারে প্রদর্শিত হয়। অ্যাপ্লিকেশনটি প্রস্তুতকারী কোম্পানি আমেরিকার ভূতত্ত্ব বিভাগের সাথে যুক্ত এবং তাদের হিসাব-নিকাশ অনুযায়ী সঠিক এবং সাবলীল তথ্য প্রদান করে।

এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে ভূমিকম্প হওয়ার স্থান এবং তীব্রতা দুটিই নির্ণয় করা সম্ভব।

জানা গেছে, ভূমিকম্পের পূর্বাভাসমূলক এই ব্যবস্থা অন্যান্য মেক্সিকো, জাপান, তাইওয়ান এবং চীনে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছে।

গত বছরের ৮ সেপ্টেম্বর মেক্সিকোতে ৮.১ মাত্রার একটি ভূমিকম্প হয়। এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করেই ওই ভূমিকম্পের পূর্বাভাস ৬০ সেকেন্ড পূর্বেই প্রচার করা হয়েছিল।

নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বলছে, এ ধরনের পূর্বাভাস মাত্র কয়েক সেকেন্ডের জন্য প্রচারিত হলেও এই সময়ের মধ্যে মানুষজন নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজ করতে পারে, ভারি কোনো যন্ত্রচালনা থেকে বিরত থাকতে পারে, গাড়ি চালনা থেকে বিরত থাকতে পারে।

তা ছাড়া পূর্বাভাসের মাধ্যমে দমকলকর্মীদেরও সচেতন করে দেওয়া সম্ভব যাতে তারা জরুরি ভিত্তিতে বিভিন্ন ব্যবস্থা নিতে পারেন।

অ্যাপ্লিকেশনটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের দাবি, বেটা কুয়েক অ্যালার্ট অ্যাপ্লিকেশন শুধু নির্দিষ্ট কোনো অঞ্চলের ভূমিকম্পের পূর্বাভাসই দেয় না বরং দূরবর্তী কোনো অঞ্চলের ভূমিকম্পের সম্ভাবনা থাকলে সেটিও জানিয়ে দেয়।